Breaking news

শিমুলিয়া ঘাটে বিক্ষোভের পর পার হচ্ছে যাত্রীবাহী যান
শিমুলিয়া ঘাটে বিক্ষোভের পর পার হচ্ছে যাত্রীবাহী যান

শিমুলিয়া ঘাটে বিক্ষোভের পর পার হচ্ছে যাত্রীবাহী যান

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌপথে ফেরি চলাচলের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন ঘাটে আটকা পড়া যাত্রী ও পরিবহনশ্রমিকেরা। আজ সোমবার সকালে মিছিল ও ফেরির টিকিটি কাউন্টার ঘেরাও করে এই বিক্ষোভ হয়।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল রোববার ঘাটে এসে ঝড়ের কারণে পদ্মা পাড়ি দিতে না পারা যাত্রীবাহী যান ড্রামফেরির মাধ্যমে পারাপার করা হচ্ছে। তবে গতকাল সন্ধ্যা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় সাত শতাধিক যানবাহনের জটলা বেঁধেছে।

ঘাট ও স্থানীয় লোকজন জানান, গতকাল সন্ধ্যা সাতটার পর থেকে বৈরী আবহাওয়ার কারণে সব ধরনের নৌ চলাচল বন্ধ রাখা হয়। সেই সঙ্গে করোনার কারণে সারা দেশে সাত দিনের ‘লকডাউন’ শুরু হয়েছে। এ কারণে যাত্রীরা শিমুলিয়া ঘাটে আটকে পড়েন।

আজ ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার কথা। তবে যেসব যানবাহন গতকাল ঘাটে এসেছিল, ঝড়ের কারণে যাঁরা পদ্মা পার হতে পারেননি, তাঁদের ড্রামফেরির মাধ্যমে পারাপার করা হচ্ছে।

 
 

এমন অবস্থায় ফেরি চলাচলের দাবিতে আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে যাত্রীরা বিক্ষোভ মিছিল করে ফেরির টিকিটি কাউন্টার ঘেরাও করে রাখেন। সকাল সাতটায় বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের এ জি এম শফিকুল ইসলামকে দেখে গাড়ির যাত্রী ও চালকেরা ফেরি চালুর দাবিতে স্লোগান দেন। পরে শিমুলিয়া ঘাটের ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক মো. হেলাল উদ্দিন ব্যক্তিগত গাড়ি (প্রাইভেট কার) বাদে শুধু ঘাটে অবস্থানরত যাত্রীবাহী বাস ফেরিতে ওঠার ঘোষণা দিলে যাত্রীরা শান্ত হন।

আটকে পড়া দক্ষিণাঞ্চলগামী যাত্রীরা বলেন, গতকাল সন্ধ্যায় শিমুলিয়া ঘাটে পৌঁছালেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে ফেরি আটকে পড়ে। পরে ফেরিসহ আর কোনো নৌযান চলাচল শুরু হয়নি। আজও কর্তৃপক্ষ বন্ধ ঘোষণা করে।

শিমুলিয়া ঘাটের ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক (টিআই) মো. হেলাল উদ্দিন আজ বেলা দেড়টার দিকে বলেন, ফেরি চলাচল স্বাভাবিক করতে সকালে যাত্রীরা বিক্ষোভ মিছিল করেন। ঘাটের পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় এখনো সাড়ে ছয় শতাধিক যানবাহন রয়েছে। তিনি আরও বলেন, আজ ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার কথা। তবে যেসব যানবাহন গতকাল ঘাটে এসেছিল, ঝড়ের কারণে যাঁরা পদ্মা পার হতে পারেননি, তাঁদের ড্রামফেরির মাধ্যমে পারাপার করা হচ্ছে।

শিমুলিয়া ঘাটের উপমহাব্যবস্থাপক মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, আজ সকাল থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। সরকারি পরবর্তী নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ থাকবে। সকাল থেকে শুধু লাশের গাড়ি পারাপার করা হচ্ছে। তিনি পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত যাত্রী ও যানবাহন চালকদের এ ঘাটে না আসার অনুরোধ করেন।


Published: 2021-04-13 17:02:04   |   View: 1168   |  
Copyright © 2017 , Design & Developed By maa-it.com



up-arrow