Add Post Here

Add Post Here

Breaking news

ফের পারমাণবিক পরীক্ষার হুংকার উত্তর কোরিয়ার
ফের পারমাণবিক পরীক্ষার হুংকার উত্তর কোরিয়ার

ফের পারমাণবিক পরীক্ষার হুংকার উত্তর কোরিয়ার

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মাঝেই আবারো যেকোনো সময় যেকোনো স্থানে পারমাণবিক পরীক্ষা চালানো হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে উত্তর কোরিয়া। সোমবার পিয়ংইয়ং বলছে, দেশটির নেতার নির্দেশনা অনুসারে এই পরীক্ষা চালানো হবে।

উত্তর কোরিয়া ষষ্ঠ পারমাণবিক পরীক্ষা অথবা দীর্ঘপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন আশঙ্কার পর চলতি সপ্তাহে কোরীয় উপদ্বীপে প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে দেশটির উত্তেজনা চরমে পৌঁছেছে। এই উত্তেজনায় নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে উত্তর কোরিয়ায় সামরিক অভিযানের সম্ভাবনা ওয়াশিংটন নাকচ করে না দেয়ায়।

উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের যেকোনো ধরনের পদক্ষেপের জবাব দিতে পুরোপুরি প্রস্তুত রয়েছে পিয়ংইয়ং।

সোমবার এই মুখপাত্রের বরাত দিয় উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনএ এক প্রতিবেদনে বলছে, ওয়াশিংটন তাদের ভ্রষ্ট নীতি থেকে সরে না আসা পর্যন্ত পিয়ংইয়ং তাদের স্বয়ংক্রিয় পারমাণবিক হামলা সক্ষমতা পরীক্ষা অব্যাহত রাখবে।

তিনি বলেছেন, সর্বোচ্চ নেতার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ধারাবাহিকভাবে এবং সফল উপায়ে পারমাণবিক শক্তিকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে এগিয়ে নিতে যেকোনো স্থানে যেকোনো সময়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

উত্তর কোরিয়া গত ১১ বছরে অন্তত পাঁচটি পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে ওয়ারহেড বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির পিয়ংইয়ংয়ের স্বপ্নের ব্যাপক অগ্রগতি হয়েছে বলে ধারণা করা হয়।

প্রত্যেক বসন্তে ওয়াশিংটন এবং সিউলের যৌথ সামরিক মহড়ার সময় হুঁশিয়ারি দিয়ে আসছে পিয়ংইয়ং। যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার এ কাজকে হামলা চালানোর মহড়া হিসেবে উল্লেখ করে অতীতে নিন্দাও জানিয়েছে দেশটি। তবে চলতি বছরে উভয়পক্ষের হুমকি পাল্টা-হুমকির জেরে কোরীয় উপদ্বীপে বর্তমানে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

সিউল এবং ওয়াশিংটনের দুই দিনের যৌথ সামরিক মহড়া রোববার শেষ হয়েছে। তবে জাপান সাগরের পূর্বাঞ্চলে মার্কিন রণতরী ইউএস কার্ল ভিনসনের নেতৃত্বে চারদেশের নৌবাহিনীর স্ট্রাইক গ্রুপের মহড়া অব্যাহত রয়েছে।

পিয়ংইয়ংয়ের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, যদি উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক শক্তিতে প্রস্তুত না হয়, তাহলে ওয়াশিংটন অন্যান্য দেশে যেভাবে আগ্রাসন চালিয়েছে; ঠিক একইভাবে কোরিয়াতেও কোনো ধরনের দ্বিধা ছাড়াই আগ্রাসন চালাবে।

সিউল অবশ্য প্রতিনিয়ত সতর্ক করে দিয়ে বলছে, যেকোনো মুহূর্তে আবারো পরীক্ষা চালাতে পারে পিয়ংইয়ং। এর মাঝেই শনিবার সকালের দিকে শক্তি প্রদর্শনের অংশ হিসেবে ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের এক অধিবেশনে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধে চাপ প্রয়োগের আহ্বান জানানোর কয়েক ঘণ্টার মাথায় ওই পরীক্ষা চালায় পিয়ংইয়ং।

বিশ্ব যদি উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা না নেয় তাহলে বিপজ্জনক ফলাফল দেখা দিতে পারে গত সপ্তাহে নিরাপত্তা পরিষদকে সতর্ক করে দেন টিলারসন। তিনি উত্তর কোরিয়ার সামরিক অভিযানের সম্ভাবনা টেবিলে রয়েছে বলেও জানান।

এদিকে সিবিএস টেলিভিশনের ‘ফেস দ্য ন্যাশন’ প্রোগ্রামে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, উত্তর কোরিয়া যদি অারেকটি পারমাণবিক পরীক্ষা চালায় তাহলে আমি খুশি হবো না। খুশি না হলে কী সেনা অভিযানের সম্ভাবনা আছে- এমন প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, আমি জানি না। তবে দেখা যাক।

Published: 2019-11-23 01:45:49   |   View: 1199   |  
Copyright © 2017 , Design & Developed By maa-it.com



up-arrow